হীড বাংলাদেশ এনজিও নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১ | HEED BD

হীড বাংলাদেশ এনজিও নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১ প্রকাশ করা হয়েছে। ১৯৭৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর থেকে যে প্রান্তিক মানুষের সৃষ্টি হয়েছে এবং সংখ্যালঘু মানুষের জীবনযাত্রায় প্রভাব রয়েছে তার পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ বাংলাদেশের অন্যতম বৃহত্তম উন্নয়ন সংস্থা। এদিকে, এইচইডিইডি বাংলাদেশ ১৩ ই ডিসেম্বর, ২০১৪ এ তার ৪০ বছর পূর্তি উদযাপন করেছে বর্তমানে এইচইইডি বাংলাদেশ বাংলাদেশের ৩২ টি জেলায় কাজ করছে। আমাদের স্লোগান হচ্ছে ‘মানবতার সেবা’ মৌলিক স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকরণের মাধ্যমে, বিকল্প আয় এবং কর্মসংস্থানের সুযোগের জন্য মূলধন তৈরির মাধ্যমে আনুষ্ঠানিক ও অপ্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাগত ও দারিদ্র্য বিমোচনের ক্ষেত্রে প্রসারিত সমর্থন, সকল দুর্যোগের প্রতিক্রিয়া এবং এভাবে মানবজীবনে রূপান্তর ঘটানো। হীড বাংলাদেশ এনজিও নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১ দেখে আবেদন করুন।

হীড বাংলাদেশ এনজিও নিয়োগ ২০২১

  • সময়সীমাঃ ২১ জুন ২০২১
  • পদ সংখ্যাঃ বিজ্ঞপ্তি দেখুন
  • অনলাইনে আবেদন করুন নিচে থেকে

হীড বাংলাদেশ এনজিও নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১

HEED Bangladesh Job Circular 2021

জনপ্রিয় চাকরির খবর সমূহ

HEED Bangladesh

টিবি নিয়ন্ত্রণ প্রোগ্রাম হ’ল বাংলাদেশের অন্যতম মূল এবং প্রতিষ্ঠাতা প্রকল্প একটি পাইলট প্রকল্প হিসাবে, এইচইইডি বাংলাদেশ ১৯৮০ সালে মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ উপজেলাতে টিবি নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম শুরু করে। ১৯৯৩ সালে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রনালয়, স্বাস্থ্যসেবা অধিদফতর (ডিজিএইচএস) এর সাথে একটি সমঝোতা চুক্তির আওতায় একটি অংশীদারিত্ব প্রকল্প হিসাবে কর্মসূচিটি মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ ও সিলেট জেলার ২৫ টি উপজেলায় প্রসারিত হয়। ২০০৪ সালে, সংস্থার টিবি প্রোগ্রাম পিআর ব্র্যাকের নেতৃত্বে জিএফএটিএম তহবিলের ছত্রছায়ায় কাজ শুরু করে।

তবে এইচইডিইডি বাংলাদেশ সরকারি স্বাস্থ্য খাতের সহযোগিতায় টিবি কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে। তিনটি জেলায় ৩৮ টি মাইক্রোস্কোপি / ডিওটি কেন্দ্র রয়েছে। প্রতিটি উপজেলায় একটি করে টিবি ক্লিনিক সরকারের নিবিড় তত্ত্বাবধানে পরিচালিত হচ্ছে। এবং এইচইডি বাংলাদেশের সংশ্লিষ্ট কর্মীরা। এগুলি ছাড়াও প্রতিটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ল্যাবরেটরি স্পুটাম মাইক্রোস্কোপি পরীক্ষার জন্য ব্যবহৃত হচ্ছে।

টিবি কেস সনাক্তকরণ বৃদ্ধির জন্য ১১ টি পেরিফেরাল ল্যাবরেটরিগুলি এইচইইডি বাংলাদেশের অধীনে মানসম্মত পরিষেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে চলছে। টিবি নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রমের সমস্ত কার্যক্রম এনটিপি গাইডলাইন জাতীয় যক্ষ্মা কর্মসূচি (এনটিপি) বাংলাদেশ অনুযায়ী চলছে। এইচইডি বাংলাদেশ অনেকগুলি ডট সরবরাহকারীদের মাধ্যমে ডট (সরাসরি পর্যবেক্ষণ চিকিত্সা) নিশ্চিত করছে যার মধ্যে গ্রাম্য চিকিত্সক, গ্রামের নেতৃবৃন্দ, ধর্মীয় নেতা, চা এস্টেট যৌগিক এবং নিরাময়িত টিবি রোগী অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। প্রাথমিকভাবে এটি কুষ্ঠ নিয়ন্ত্রণ পরিষেবাদির একক দাতার অধীনে ছিল এবং এটি ২০০৪ অবধি অব্যাহত ছিল। পরে সিলেট বিভাগের সাতটি উপ-জেলা সিলেট, মৌলভীবাজার ও হবিগঞ্জ জেলায় উপ-গ্রহীতা হিসাবে ব্যয় করা লেপ্রসি এবং টিবি উভয়ই নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম ছিল। ব্র্যাকের মাধ্যমে লেপরা আন্তর্জাতিক ও গ্লোবাল ফান্ড। পরে ২০১২ সালে ইউএসএইডের তহবিল টিবি কেয়ার ২ প্রকল্প ইউআরসি-র মাধ্যমে, এইচইডিইডি বাংলাদেশকে উপ-গ্রহীতা হিসাবে ভূষিত করা হয়েছিল গ্লোবাল ফান্ডযুক্ত টিবি নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচির অনাবৃত অংশ এবং বিশেষত সিলেট বিভাগের চা ও রাবার উদ্যান অঞ্চলে যেখানে বিচ্ছিন্ন জাতিগত সংখ্যালঘু লোকেরা বাস করে।

প্রোগ্রামের উদ্দেশ্যগুলি

  • কেস সনাক্তকরণ এবং সম্পর্কিত পরিচালনার উন্নতি করুন
  • সঠিকভাবে পরিচালিত মানক টিবি ব্যবস্থা নিশ্চিত করুন
  • টিবি পরিস্থিতি উন্নয়নের জন্য ওকালতি
  • টিবি পরিস্থিতি উন্নয়নের জন্য যোগাযোগ এবং সামাজিক জড়োকরণ

Leave a Reply

Back to top button
error: লেখা কপি করা যাবেনা !!