বাংলাদেশ পাট গবেষণা ইনস্টিটিউট নিয়োগ ২০২১ | bjri job

বাংলাদেশ পাট গবেষণা ইনস্টিটিউট নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১ প্রকাশিত হয়েছে। বাংলাদেশ পাট গবেষণা ইনস্টিটিউট বাংলাদেশে পাট এবং পাট জাতীয় আঁশ ফসল এর একমাত্র গবেষণা প্রতিষ্ঠান। ১৯৩৬ সালে ইন্ডিয়ান সেন্ট্রাল জুট কমিটির আওতায় ঢাকায় জুট এগ্রিকালচারাল রিসার্চ ল্যাবরেটরী প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে পাটের গবেষণা শুরু হয়। ১৯৫১ সালে ইন্ডিয়ান সেন্ট্রাল জুট কমিটির স্থলে পাকিস্তান সেন্ট্রাল জুট কমিটি গঠিত হয় যার সদর দপ্তর ঢাকায় ছিল। ১৯৫১ সালে পাকিস্তান সেন্ট্রাল জুট কমিটির অধীনে পাট গবেষণাগার স্থাপিত হয়। বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর ১৯৭৪ সালে এ্যাক্টের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত হয় বাংলাদেশ পাট গবেষণা ইনস্টিটিউট। বাংলাদেশ পাট গবেষণা ইনস্টিটিউট নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেখে আবেদন করুন।

বাংলাদেশ পাট গবেষণা ইনস্টিটিউট নিয়োগ

  • সময়সীমাঃ ২৬ জুলাই ২০২১
  • পদ সংখ্যাঃ বিজ্ঞপ্তি দেখুন
  • আবেদন ফরম ডাউনলোড করুন নিচে থেকে

আবেদন ফরম ডাউনলোড করুন

জনপ্রিয় চাকরির খবর সমূহ

Bangladesh Jute Research Institute

কারিগরী গবেষণায় ৪টি, জুট টেক্সটাইল গবেষণায় ১টি ও পরিকল্পনা, প্রশিক্ষণ ও যোগাযোগ বিভাগসহ মোট ১২টি বিভাগ রয়েছে। এছাড়াও কৃষকদের সময় উপযোগী চাহিদা এবং প্রয়োজন মোতাবেক পাট অঞ্চল ভিত্তিক কৃষি গবেষণার জন্য মানিকগঞ্জে পাটের কেন্দ্রীয় কৃষি পরীক্ষণ স্টেশন ও রংপুর, ফরিদপুর, কিশোরগঞ্জ ও চান্দিনায় চারটি আঞ্চলিক পাট গবেষণা কেন্দ্র ও তারাবো (নারায়নগঞ্জ), মনিরামপুর (যশোর), কলাপাড়ায় (পটুয়াখালী) তিনটি পাট গবেষণা উপকেন্দ্র ও নশিপুরে (দিনাজপুর) একটি পাট বীজ উৎপাদন গবেষণা কেন্দ্র রয়েছে।

উল্লেখ্য যে, পাট, কেনাফ ও মেস্তা ফসল এর দেশী বিদেশী বীজ সংরক্ষণ উন্নত জাত উদ্ভাবনে গবেষণা কাজে ব্যবহার এর জন্য বিজেআরআইতে একটি জিন ব্যাংক রয়েছে। এই জিন ব্যাংকে বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে সংগৃহিত পাট ও সমগোত্রীয় আঁশ ফসল এর প্রায় ৬০০০ জার্মপ্লাজম সংরক্ষিত আছে। সম্প্রতি বিজেআরআই কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন “পাট বিষয়ক মৌলিক এবং ফলিত গবেষণা” প্রকল্প অর্থায়নে গবেষণার মাধ্যমে জীব প্রযুক্তি ব্যবহার করে দেশী এবং তোষা পাট ও ধইঞ্চার জিনোম সিকুয়েন্স উন্মোচন করে গবেষণার উৎকর্ষ সাধন এর মাধ্যমে এক নতুন দিগন্তের উন্মোচন করা হয়েছে এটি বিশ্বে বাংলাদেশকে এক অনন্য উচ্চতায় আসীন করেছে।

কার্যাবলি

  • উন্নতজাতের পাটবীজের প্রিডিগ্রির উৎপাদন, পরীক্ষা-নিরীক্ষা, বর্ধিতকরণ ও বোর্ড কর্তৃক প্রত্যায়নকৃত প্রতিষ্ঠান, উৎপাদনকারী বা একই রকমের অন্যান্য এজেন্সির নিকট সরবরাহ করা।
  • পাট ও অন্যান্য আঁশ উৎপাদনকারী ফসল ও তা থেকে উৎপাদিত দ্রব্যাদির উপর গবেষণার লক্ষ্যে দেশের বিভিন্ন স্থানে গবেষণা কেন্দ্র, সাব-স্টেশন, পাইলট প্রজেক্ট এবং খামার প্রতিষ্ঠা করা।
  • পাট ও অন্যান্য আঁশ উৎপাদনকারী ফসল এবং তা থেকে উৎপাদিত দ্রব্যাদির উপর গবেষণা এবং তার ফলাফল প্রকাশ।
  • ইনস্টিটিউট কর্তৃক উদ্ভাবিত জাতসমূহের প্রদর্শনের লক্ষ্যে প্রজেক্টের এলাকা ঠিক করা ও সংশ্লিষ্ট এলাকার কৃষকদের উক্ত জাতের পাট চাষে প্রশিক্ষণ দেয়া।
  • পাটের গবেষণা এবং ইনস্টিটিউটের উপর বার্ষিক প্রতিবেদন, মনোগ্রাফ, বুলেটিন ও অন্যান্য প্রকাশনা প্রকাশ করা।
  • পাট ও অন্যান্য আঁশ উৎপাদনকারী ফসলের আধুনিক ও উন্নত চাষ পদ্ধতির উপর কর্মকর্তা, অগ্রসর কৃষকদের প্রশিক্ষণ এর ব্যবস্থা করা, একই সঙ্গে কারিগরি বিষয়ক ব্যক্তিদের কলাকৌশলগত বিষয়াদির ব্যবহারে প্রশিক্ষণ দেয়া।
  • পাট আইনের উদ্দেশ্যসমূহ বাস্তবায়ন এর লক্ষ্যে অন্যান্য প্রয়োজনীয় কার্যক্রম পরিচালনা করা।

উদ্দেশ্য

  • উন্নতমান এর কৌলিতাত্ত্বিক বিশুদ্ধতাসহ পাটবীজ উৎপাদন, পরিচালন, পরীক্ষণ, সরবরাহ এবং সীমিত আকারে উন্নত মানের পাটবীজ উৎপাদন, সংগ্রহ নির্বাচিত চাষী, স্বীকৃত প্রতিষ্ঠান এবং বোর্ড কর্তৃক অনুমোদিত এজেন্সীর নিকট বিতরণ।
  • পাট ও সমশ্রেণীর আঁশ ফসল, পাটজাত পণ্য ও আনুষাঙ্গিক বিভিন্ন সমস্যা সংক্রান্ত গবেষণার লক্ষ্যে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে গবেষণা কেন্দ্র, পাইলট প্রজেক্ট এবং খামার স্থাপন।
  • পাট ও সমশ্রেণীর আঁশ ফসলের কৃষি, কারিগরী এবং অর্থনৈতিক গবেষণা, ব্যবস্থাপনা ও আঁশজাত ফসল উৎপাদন ও গবেষণালব্ধ প্রযুক্তি সম্প্রসারণ।
  • চাষের উন্নত পদ্ধতি সম্পর্কে পাটের সাথে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা, কর্মচারী ও পাট চাষীদের প্রশিক্ষণ এবং পাট সংক্রান্ত কারিগরী গবেষণালব্ধ প্রযুক্তি সম্পর্কে পাট শিল্পে সংশ্লিষ্ট জনশক্তির প্রশিক্ষণের আয়োজন করা।
  • উত্তরবংগে পাট চাষ এর প্রভাব অনেক বেশি। প্রায় ৯০ শতাংশ পাট-ই আমদানি করা হয় উত্তরবংগ থেকে।

Leave a Reply

Back to top button
error: লেখা কপি করা যাবেনা !!