প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২২

প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট শূন্য পদ গুলোতে নতুন জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২২ অনুসারে যোগ্যতা পূরণ সাপেক্ষে যোগ দিতে পারেন। কোনাে স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় হতে কম্পিউটার সায়েন্স/ কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং/ ইলেকট্রিক্যাল কমিউনিকেশন টেকনােলজি সংশ্লিষ্ট বিষয়ে অন্যূন দ্বিতীয় শ্রেণি অথবা সমমানের সিজিপিএসহ চার বছর মেয়াদি স্নাতক বা সমমানের ডিগ্রি। সহকারী রক্ষণাবেক্ষণ প্রকৌশলী হিসাবে অন্যূন চারবছরের চাকুরি অভিজ্ঞতা। এগুলো থাকলে প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেখ আবেদন করতে পারেন।

বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রী ফেলোশিপ 2022 চাকরির সার্কুলার আজ অফিসিয়াল ওয়েবসাইট www.pmedutrust.gov.bd এ প্রকাশিত হয়েছে। শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট আজ নতুন চাকরির পদ প্রদান করে। প্রধানমন্ত্রী ফেলোশিপ চাকরির জন্য কীভাবে আবেদন করবেন আমরা আপনাকে সাহায্য করি। প্রধানমন্ত্রী ফেলোশিপ অফার করেন 2022 চাকরির বিজ্ঞপ্তির আবেদন প্রক্রিয়া খুবই সহজ। আপনি কিছু পদক্ষেপ মেনে আবেদন করুন খুব সহজে।

বাংলাদেশ প্রাইম মিনিস্টার ফেলোশিপ চাকরির শূন্যপদগুলি বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রী দ্বারা প্রকাশিত ফেলোশিপ 2022 কর্তৃপক্ষ কর্তৃপক্ষ দ্বারা প্রকাশ হয়েছে। যাইহোক, আমাদের ওয়েবসাইটে প্রয়োগকৃত সমস্ত নির্দেশাবলী এবং শিক্ষাগত যোগ্যতাও দেওয়া থাককে। চাকরি সন্ধানকারী সমস্ত সরকারি চাকরির সার্কুলার পেতে পারেন যেমন প্রধানমন্ত্রীর ফেলোশিপ চাকরির প্রস্তাব bdjobsedu.com দেখুন। আপনি Google প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২২ -এ অনুসন্ধান করতে পারেন।

প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট নিয়োগ ২০২২

  • সময়সীমাঃ ১৬ জানুয়ারী ২০২২
  • পদ সংখ্যাঃ বিজ্ঞপ্তি দেখুন
  • অনলাইনে আবেদন করুন নিচে থেকে

প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২২

PMEAT Application Form Download

PMEAT Application Form Download

জনপ্রিয় চাকরির খবর সমূহ

Prime Minister Education Assistance Trust Job Circular 2022

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০ এপ্রিল ২০১০ সালে অর্থের অভাবে শিক্ষার সুযোগ বঞ্চিত দরিদ্র এবং মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের শিক্ষা নিশ্চিত করার উদ্দেশ্যে বৃত্তি প্রদানের জন্য একটি (ট্রাস্ট ফান্ড) গঠনের লক্ষ্যে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়কে লিখিত নির্দেশনা প্রদান করে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় এর ১৭ আগস্ট ২০১০ সালে প্রজ্ঞাপনে মুখ্যসচিব, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়কে আহবায়ক করে ট্রাস্ট ফান্ড গঠন ও বাস্তবায়ন এর লক্ষ্যে নীতিমালা প্রণয়নের জন্যএকটি উপ-কমিটি গঠন করা হয়। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রীর সভাপতিত্বে পাঁচটি সভা অনুষ্ঠিত করা হয়। সভার সিদ্ধান্তের আলোকে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এর ৩১ জানুয়ারি, ২০১১ সালে পত্রে ট্রাস্ট ফান্ড গঠন সম্পর্কিত প্রতিবেদন। নীতিমালা এবং আইনের খসড়া পরিকল্পনা কমিশনে পেশ করা হয়। ট্রাস্ট আইনের ৩ উপ-ধারার বিধান অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট নামে একটি (ট্রাস্ট) স্থাপন করা হয়। এই আইনের উপ-ধারার বিধান অনুযায়ী পাঁচ সদস্যবিশিষ্ট একটি উপদেষ্টা পরিষদ গঠন করা হয়। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী উপদেষ্টা পরিষদ এর চেয়ারপার্সন।

ট্রাস্ট এর কার্যাবলি

  • ৬ষ্ঠ থেকে স্নাতক (পাস) ও সমমান শ্রেণি পর্যন্ত দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের বিনা বেতনে শিক্ষা গ্রহণের সুযোগ সৃষ্টি ও উপবৃত্তি প্রদান
  • ট্রাস্ট তহবিলের জন্য অর্থ সংগ্রহ, সংরক্ষণ ও বিনিয়োগ
  • প্রতিষ্ঠান ও শিক্ষার্থী নির্বাচনের মানদন্ড নির্ধারণ
  • উপবৃত্তির হার ও পরিমাণ নির্ধারণ
  • সকল স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি রক্ষণাবেক্ষণ ও হেফাজতকরণ
  • লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের নিমিত্ত বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণসহ যাবতীয় কার্যক্রম গ্রহণ
  • ট্রাস্ট এর অধীন গবেষণা কার্যক্রম পরিচালন
  • মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর, কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর এবং মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের ট্রাস্ট ফান্ড সংক্রান্ত কাজে সম্পৃক্তকরণ
  • শিক্ষা কার্যক্রমে সরকারি-বেসরকারি সংস্থা এবং সমাজের বিত্তশালীদের সম্পৃক্তকরণ
  • শিক্ষার্থী ঝরে পড়া রোধসহ সকল পর্যায়ে শিক্ষার গুণগত মান নিশ্চিতকরণ
  • স্নাতকোত্তর পর্যায়ে উচ্চতর গবেষণার জন্য পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে এম.ফিল.ও পিএইচ.ডি. কোর্সে নিবন্ধিত বা গবেষণায় নিয়োজিত গবেষককে ফেলোশিপ ও বৃত্তি প্রদান।

Leave a Reply

Back to top button
error: লেখা কপি করা যাবেনা !!